Blog

Keep up to date with the latest news
ডেসক্রিপশন ও মেটা ডেসক্রিপশন নিয়ে আলোচনা

ডেসক্রিপশন ও মেটা ডেসক্রিপশন নিয়ে আলোচনা

Spread the love

 

ডেসক্রিপশন 

ডেসক্রিপশন বলতে বোঝায় কোন একটি জিনিসের ছোটখাটো বর্ণনা। ডেসক্রিপশন কোন একটি পণ্য বা প্রোডাক্ট অথবা সেবা অনেক কিছুরই হতে পারে। ডেসক্রিপশন আমি পূর্ববর্তী একটি আর্টিকেল লিখে ছিলাম যেখানে উদাহরণ হিসেবে প্রোডাক্ট ডেসক্রিপশন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছিলাম। আমার সেই আর্টিকেলটি পুরোপুরি পড়লে আপনার ডেসক্রিপশন সম্বন্ধে বেশ ভালো একটি ধারণা এসে পড়বে। কোন মত একটা ডেসক্রিপশন লিখে দিলে যে সেটা সম্পূর্ণ এবং পরিপূর্ণ একটি ডেসক্রিপশন হয়ে যায় এমনটা কিন্তু নয়। ডেসক্রিপশন এ শুধুমাত্র প্রোডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত একটি ধারণা দিলেই চলবে না। অনেক নিয়মকানুন মেনে বা টিপস ফলো করে একটি প্রোডাক্ট এর ডেসক্রিপশন লেখা উচিত, যেন যে ব্যক্তি ডেসক্রিপশন টি পড়বে সে ব্যক্তিটি যেন মনে করে সে আপনার সাথেই কথা বলছে। 

চলুন ডেসক্রিপশন এর আরেকটি নতুন উদাহরণ দেয়া যাক। ধরুন আপনি একটি কম্পিউটার কিনতে চাচ্ছেন। এতে গুগলের অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনে গিয়ে আপনি কম্পিউটার এর ব্যাপারে সার্চ করলে। যার ফলে অনেকগুলো ব্যান্ডের অনেক মডেলের কম্পিউটারের রেজাল্টই আপনার সামনে এসে পড়ল। আপনি যেকোন একটিতে প্রবেশ করলেন এবং একটি একটি করে কম্পিউটার দেখতে লাগলেন। কিন্তু শুধু কি দেখলেই হবে নাকি, আপনি যে কম্পিউটার গুলো দেখছেন সেগুলো ব্যাপারে কী জানতে হবেনা কিছু? অবশ্যই জানতে হবে এবং আপনাকে এসব জানিয়ে দেওয়ার কারণেই সে কম্পিউটারে পিকচার গুলোর পাশে অথবা নিচে ডেসক্রিপশন দেওয়া থাকে। ডেসক্রিপশন এ কম্পিউটার এর ব্যাপারে কমবেশি সমস্ত কিছু দেওয়া থাকে যা আপনার জন্য ইনফরমেটিভ একটি বিষয়। তাই ডেসক্রিপশন লেখার আগে অনেক কিছুই ভাবতে হয় এবং যথেষ্ট রিসার্চ করতে হয় যেন ভিজিটর রা কোন ভুল তথ্য না পায় ও অল্প কিছু পড়েই খুব বেশি পরিমাণে সে প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানতে পারে। 

 

মেটা ডেসক্রিপশন 

কোন একটি সার্চ ইঞ্জিনের সার্চ রেজাল্ট এর টাইটেল এবং url এর নিচে ছোট্ট করে যে ডিসক্রিপশন দেওয়া থাকে তাই হলো মেটা ডেসক্রিপশন। মূলত মেটা ডেসক্রিপশন হলো একটি HTML ট্যাগ যেটি দিয়ে একটি ওয়েব পেজে কনটেন্ট এর ভিতরে কি বিষয়ে লেখা আছে সেটি খুব সহজেই বোঝা যায়। 

আসুন উদাহরণ দিয়ে ধারনাটা ক্লিয়ার করা যাক। ধরুন আপনি শাহরুখ খানের অনেক বড় ভক্ত। তার ব্যাপারে জানতে আপনি অনেক বেশি আগ্রহী এবং তার ব্যাপারে যতই জানেন ততই যেন আপনার কাছে কম হয়ে যায় যার জন্য আপনি এ ব্যাপারে রিসার্চ করতেই থাকেন। তো ধরুন আপনি রিসার্চ করলেন এটি লিখে “I Want To Know About Shah Rukh Khan’.

লিখে সার্চ করার পর আপনি অসংখ্য রেজাল্ট পেয়ে গেলেন। খেয়াল করলে দেখবেন সার্চ রেজাল্ট গুলো আসার পর ছোট্ট করে কিছু লেখা থাকে। টাইটেলের নিচে সেই ছোট্ট লেখাটিতে এটিই থাকে যে এই টাইটেল এর কনটেন্ট এর ভেতর আপনি কি কি পাচ্ছেন, কেন আপনার এই কনটেন্ট টি পড়া উচিত। মূলত এই ছোট লেখাগুলো পড়ে কোন একটি ভিজিটর আগ্রহী হয় পুরো কনটেন্টটি পড়ার জন্য। কারণ একজন ভিজিটর যদি তার চাহিদা মত সবই পায় তাহলে সে কেন আপনার আর্টিকেল টি স্কিপ করবে। তাই মেটা ডেসক্রিপশন লেখার ক্ষেত্রে অনেক সচেতন থাকতে হয় এবং অনেক ইন্টারেস্টিং ভাবে লিখতে হয় যেন মেটা ডেসক্রিপশন পরেই আপনার ভিজিটর বুঝতে পারে যে আপনি তাকে কি কি দিতে যাচ্ছেন বা সে তার চাহিদামতো সব পাচ্ছে কিনা আপনার কন্টেন্ট এ।

মেটা ডেসক্রিপশন কেন গুরুত্বপূর্ণ?

🔸সর্বপ্রথম ই যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি লক্ষ্য করা যায় সেটি হল মেটা ডেসক্রিপশন কোন একটি ওয়েব পেজের CTR অনেক গুণেই বাড়িয়ে দেয়। CTR মানে হলো Click Through Rate.

মেটা ডেসক্রিপশন টাইটেল বা Url এর নিচেই দেওয়া থাকে যা দেখে আপনার ইউজার সহজেই বুঝতে পারে যে আপনার আর্টিকেল টিতে সে কি পেতে যাচ্ছে এবং ইউজার যদি আর্টিকেলটি পড়তে আগ্রহী হয় তাহলে সে অবশ্যই আপনার আর্টিকেল এ ক্লিক করবে, এটাকেই বলা হয় Click Through Rate.

🔸একটি আকর্ষণীয় মেটা দেস্ক্রিপশন আপনার ওয়েবপেজ এর জন্য বেশ ভালো সংখ্যক CTR জোগাড় করতে সক্ষম। বেশি পরিমানে CTR বাড়লে আপনার সাইট ও গুগলের র‍্যাংকিং এর আসতে খুব বেশি সময় নিবে না।

 

যদি আমার পূর্ববর্তী আর্টিকেলগুলো পড়ে থাকেন তাহলে ডেসক্রিপশনে নিয়ে তো সম্পূর্ণরূপে ধারণা আগেই পেয়েছিলেন, আশাকরি এখন মেটা ডেসক্রিপশন নিয়েও আর কোনো কনফিউশন আপনাদের মনে থাকবে না যদি আপনি আমার এই আর্টিকেলটি ভালো মতো পড়েন। 

 

শাকিল রহমান 

সিনিয়র কনটেন্ট রাইটার 

টিম “LIKHBO”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *